Just IN :

কপ-২৫-এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

কপ-২৫-এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

কপ-২৫-এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ এখানে জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলন হিসেবে পরিচিত ‘রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের ২৫তম বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলন’ (কপ২৫) এ যোগ দিয়েছেন।
জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশনের ২৫তম বার্ষিক সম্মেলন (ইউএনএফসিসিসি)-এর কপ২৫ আজ সকালে স্পেনের সর্ববৃহৎ এক্সিবিশন কমপ্লেক্স এবং ইউরোপের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থান ফারিয়া দা মাদ্রিদ-এ কপ-২৫ শুরু হয়েছে।
দু’সপ্তাহব্যাপী (২-১৩ ডিসেম্বর) সম্মেলনটি স্পেনের সার্বিক সহায়তায় চিলির সভাপতিত্বে মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সম্মেলন স্থলে উপস্থিত হলে স্পেনের প্রেসিডেন্ট পেড্রো সানচেজ তাঁকে অভ্যর্থনা জানান।
সম্মেলন উদ্বোধনের আগে শেখ হাসিনা কপ২৫ লিডার্স সামিটে ‘এ্যাকশন ফর সারভাইবাল : ভালনারেবল নেসন্স’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী কপ২৫-এর সাধারণ গোল টেবিল বৈঠকে যোগদেন এবং স্পেনের প্রেসিডেন্টের আয়োজিত একটি ভোজ সভায় অংশ নেন।
এর আগে তিনি কপ২৫-এর ফাঁকে ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন।
বিকেলে প্রধানমন্ত্রী স্পেনের প্রেসিডেন্ট পেড্রো সানচেজের সঙ্গেও দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন ।
সন্ধ্যায় রাজ প্রাসাদে স্পেনের রাজা এবং রানী আয়োজিত সংবর্ধনায় যোগ দেবেন তিনি।
কপ-২৫ নামে পরিচিত ২৫তম জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলন জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশনের ২৫তম বার্ষিক সম্মেলন (ইউএনএফসিসিসি) কিয়োটো প্রটোকলের (সিএমপি১৫) ১৫তম সভা এবং প্যারিস চুক্তির পক্ষগুলোর দ্বিতীয় সভাকে (সিএমএ২) অন্তর্ভুক্ত করবে।
সম্মেলনের সভাপতি মনোনীত হয়েছেন চিলির পরিবেশ মন্ত্রী মিজ ক্যারোলিনা স্মিদভ জালদিভার।
এই সম্মেলনে জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত কর্মসূচির পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেয়া হবে। এই পদক্ষেপ গত বছর পোল্যান্ডের ‘কপ২৪’ এ প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়নের নির্দেশনার ভিত্তিতে নেয়া হবে। এসব নির্দেশনার প্রধানতম হচ্ছে প্যারিস জলবায়ু চুক্তির পরিপূর্ণ কার্যকারিতার ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয়ের নিষ্পত্তি করা।
সম্মেলনটি এ বছর নভেম্বরে ব্রাজিলে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এর পরিকল্পনা শুরুর এক বছর আগেই নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো অর্থনৈতিক মন্দার কারণ দেখিয়ে স্বাগতিক হওয়ার প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেন।
পরবর্তীতে স্বাগতিক চিলি এগিয়ে আসে। কিন্তু বৈঠকের আগে সামাজিক অস্থিরতার ফলে ২০১৯’র অক্টোবরের শেষের দিকে চিলিও স্বাগতিক হওয়া থেকে সরে আসে। পরে জাতিসংঘ, চিলি ও স্পেনের পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে স্পেন এর স্বাগতিক হয়।সূত্র:বাসস

Related Posts