সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫০ অপরাহ্ন

করোনা ওয়ার্ডে মারা গেলেন স্বামী, ছুরি নিয়ে স্ত্রীর ধাওয়া

করোনা ওয়ার্ডে মারা গেলেন স্বামী, ছুরি নিয়ে স্ত্রীর ধাওয়া

নিউজ ডেস্ক: চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে এক নারীর ধারালো ছুরি নিয়ে দৌড়াদৌড়িতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন রোগী ও তাদের স্বজনরা। করোনায় আক্রান্ত ওই নারীর স্বামী চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার (০৬ আগস্ট) দুপুরে মারা যান।

এই ঘটনায় ওই নারী সঙ্গে থাকা একটি ধারালো ফল কাটার ছুরি নিয়ে ওয়ার্ডে রোগীর স্বজনদের পাশাপাশি চিকিৎসক ও নার্সদের ধাওয়া করেন। একপর্যায় তিনি জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালের ফ্লোরে শুয়ে পড়েন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ফরিদগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ রূপসা এলাকার দেলোয়ার হোসেন ৫ আগস্ট করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ দুপুরে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় তার সহধর্মিণী কুলসুমা বেগম মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ছুরি নিয়ে করোনা ওয়ার্ডের নার্স ও স্বজনদের ধাওয়া করেন। একপর্যায়ে হাসপাতালের কর্মচারীদের সহায়তায় ওই নারী শান্ত হন। পরে তিনি জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালের ফ্লোরে শুয়ে পড়েন।

২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে এই ঘটনায় চিকিৎসাধীন রোগী ও তাদের স্বজনদের পাশাপাশি চিকিৎসক-নার্সদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

হাসপাতালের স্টাফ আলআমিন বলেন, হঠাৎ করেই ওই নারী ছুরি নিয়ে দ্বিতীয় তলায় ছুটাছুটি করতে থাকেন। কিছুক্ষণ পর ওই নারী শান্ত হলে তার মৃত স্বামীকে অ্যাম্বুলেন্সে করে বাড়ি নিয়ে যান। ঘটনার পর হাসপাতালে একপ্রকার আতঙ্ক বিরাজ করছে।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালর করনো ফোকাল পারসন ও আরএমও ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, এক দিন আগেই দেলোয়ার হোসেন হাসপাতালে ভর্তি হন। তার অক্সিজেন লেভেল খুবই কম ছিল। আমরা চেষ্টা করেও তাকে বাঁচাতে পারিনি।

তিনি আরও বলেন, মৃত্যুর পরে তার স্ত্রী মানসিকভাবে অসুস্থ হয় এবং একপর্যায় তার হাতে থাকা ফল কাটার ছুরি দিয়ে পুরো ওয়ার্ডের মানুষকে আঘাত ঘরার চেষ্টা করে। পরে হাসপাতালের সবাই মিলে তাকে শান্ত করি।


© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এনপিনিউজ৭১.কম
Developed BY Rafi It Solution