শুক্রবার, ২৫ Jun ২০২১, ০১:২৩ অপরাহ্ন

কিশোরগঞ্জে ঈদগাহ মাঠের জমি নিয়ে সংঘর্ষে ওসি (তদন্ত) সহ আহত ১০

কিশোরগঞ্জে ঈদগাহ মাঠের জমি নিয়ে সংঘর্ষে ওসি (তদন্ত) সহ আহত ১০

এনপিনিউজ৭১/শাহজাহান আলী মনন / ২৭ এপ্রিল রংপুর

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামে ঈদগাহ ময়দানের জমি নিয়ে সোমবার ১১টার দিকে পুলিশ ও এলাকাবাসির মধ্যে সংঘর্ষে ওসি (তদন্ত)সহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।
আহতরা হল কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ মফিজুল ইসলাম(৫০), এস আই ওহাব হোসেন (৩৫), গ্রামবাসির মধ্যে তহি বেগম (৪০), ইলিয়াছ হোসেন (৫০), সাইফুল ইসলাম (২৮), ফিরোজ (৪০), ফারুক (২৫), মনির (২৫),ও আনারুল ইসলাম(২৮)। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তহি বেগমকে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যরা স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। ওসি (তদন্ত) মফিজুল ইসলামের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদশি সূত্রে জানা গেছে, কালিকাপুর গ্রামের ইছা মামুদের ছেলে তছলিম উদ্দিনের জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ময়দান কমিটির লোকজনের সাথে সকাল ১১টার দিকে উত্তেজনা বিরাজ করে । তছলিম উদ্দিন ৯৯৯ ফোন করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ইলিয়াছ হোসেনের সাথে পুলিশের বচসা বাধেঁ। এক পর্যায়ে পুলিশ তাকে ধাওয়া করলে সে নদীতে নামে। পুলিশও তার পিছু নিয়ে ইলিয়াছকে ধরে নদীর পানিতে নাকানি-চুবানি খাওয়ায়। স্বামীর এঘটনা দেখে স্ত্রী তহি বেগম এগিয়ে গেলে তাকেও পুলিশ এলোপাথারি মারপিট করে। তহির বেগমের রক্তক্ষরণ দেখে এলাকাবাসি পুলিশকে চারদিক থেকে ঘিরে ধরে । ঘটনাস্থলে থাকা এস আই ওহাব হোসেন পরিস্থিতি বেগতিক দেখে অতিরিক্ত পুলিশ চেয়ে থানায় খবর পাঠায়। পুলিশ গিয়ে এলাকাবাসিকে লাঠিচার্জ শুরু করলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধেঁ। এ সময় ওসি (তদন্ত) মফিজুল সহ ১০ জন আহত হয়।
উপজেলা পরিষদ চেয়াম্যান আবুল কালাম বারি পাইলট জানায়, ‘আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে আহত ওসি (তদন্ত) মফিজুল ইসলামকে চিকিৎসার জন্য এ্যম্বুলেন্সে তুলে দেই।’
এ ব্যাপারে কালিকাপুর ময়দান কমিটির সভাপতি চাঁদ চৌধুরীর সাথে কথা হলে তিনি সংঘর্ষের ঘটনা স্বীকার করেন এবং পরিস্থিতি শান্তর জন্য সর্বাত্বক চেষ্ঠা করেন বলে জানান।
কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হারুন অর রশিদের সাথে কথা হলে তিনি জানান, এলাকাবাসীর উত্তেজনা থামাতে গিয়ে ওসি(তদন্ত) আহত হয়েছেন। বর্তমান ওই এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তবে সংঘর্ষের উস্কানীদাতাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করার প্রক্রিয়া চলছে।

এনপি৭১/সৈয়দপুর (নীলফামারী)


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah