বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ১২:৫০ অপরাহ্ন

নীলফামারীতে একদিনে চিকিৎসক, শিশুসহ ১২ করোনা রোগী শনাক্ত

নীলফামারীতে একদিনে চিকিৎসক, শিশুসহ ১২ করোনা রোগী শনাক্ত

এনপিনিউজ৭১/ শাহজাহান আলী মনন/ ১১ মে

নীলফামারীতে একদিনেই নতুন করে এক নারী চিকিৎসক এবং একই পরিবারের ছয় সদস্যসহ মোট ১২ জনের করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫২ জনে। শনাক্ত হওয়া ওই ৫২ জনের মধ্যে জেলায় দুইজন মৃত্যুবরণ করেছেন। ১০ মে রবিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডাঃ রনজিৎ কুমার বর্মন।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে, রবিবার জেলায় ১২ জনের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে জেলা সদরে ৭ জন, ডোমারে ২ জন, সৈয়দপুরে পাঁচ মাস বয়সের এক শিশু ও তার মা এবং ও ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী চিকিৎসক।
সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রাশেকুল হোসেন বলেন,‘রবিবার নীলফামারী পৌর শহরের বাড়াইপাড়া মহল্লায় একই পরিবারের দুই শিশুসহ ছয়জন এবং সবুজপাড়া মহল্লায় এক নারীর দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে।
বাড়াইপাড়ার একই পরিবারে ৬ জনের মধ্যে ৩ ও ৭ বছরের দুই কন্যা শিশু, ১৪ বছরের এক কিশোরী, ১৫ বছরের এক কিশোর, ১৮ বছরের এক যুবক ও ৫০ বছর বয়সী এক নারী রয়েছেন। ওই পরিবারের কর্তা ইসলামী ব্যংক সৈয়দপুর শাখার কর্মচারী ছিলেন।
এর আগে ওই ব্যাংক কর্মচারীর দেহে সংক্রমণ ধরা পড়ায় তাকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশনে নেওয়া হয়। এর গত ৮ মে তার পরিবারের ৭ সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
রবিবার দিনাজপুর থেকে ফলাফল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে আসে। এতে ওই ব্যাংক কর্মীর স্ত্রী বাদে সকলের করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে।’
অপরজন জেলা শহরের সবুজপাড়ার ২২ বছর বয়সী এক নারী। তার পরিবারের এক পুরুষ সদস্যের করোনা সংক্রমণ ধারা পাড়ে। ওই নারীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ফলাফলে করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে।
ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সারোয়ার আলম বলেন, রবিবার ডিমলা উপজেলা হাসপাতালের এক নারী চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেন ওয়ার্ডে এক সপ্তাহ দায়িত্ব পালন করেছিলেন। সেখান থেকে ডিমলায় ফিরে হাসপাতালের নিজ কোয়াটারে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। গত ৭ মে কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ওই চিকিৎসকের নুমনা সংগ্রহ করা হলে ফলাফল পজেটিভ আসে। বর্তমানে তিনি নিজ কোয়াটারেই আইসোলেশনে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন।
নীলফামারী সিভিল সার্জন ডাঃ রনজিৎ কুমার বর্মন বলেন,‘ডোমারের আক্রান্ত দুইজন পুরুষ এবং সৈয়দপুরে পাঁচ মাস বয়সী এক শিশু ও তার মা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশনে নেওয়া হবে। আর জেলা সদরের একই পরিবারের দুই শিশুসহ ছয় সদস্যকে তার বাড়িতে আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এবং ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক নিজ কোয়ার্টারে আইসোলেশনে রয়েছেন। তার খোজখবর রাখা হচ্ছে। একইসাথে সৈয়দপুরে পাঁচ মাসের শিশুসহ মা কে নিজ বাসাতেই একটি রুমে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।

এনপি৭১/নীলফামারী

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah