মঙ্গলবার, ২৭ Jul ২০২১, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

পীরগঞ্জে জমি বিক্রির পরে একের পরে এক মিথ্যা মামলা দিয়ে আওয়ামীলীগ নেতাকে হয়রানি

পীরগঞ্জে জমি বিক্রির পরে একের পরে এক মিথ্যা মামলা দিয়ে আওয়ামীলীগ নেতাকে হয়রানি

শরীফুল ইসলাম,রংপুর:

পীরগঞ্জে জমি বিক্রির পরে মিথ্যা মামলা দিয়ে আওয়ামীলীগ নেতাকে হয়রানি। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে পুলিশ জমি ক্রেতা জারজিস ওরফে বাবলুকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেয়। আজ সোমবার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রট আদালত তাকে জামিন দেন।

এলাকাবাসী ও সরেজিমেন জানাগেছে ,রংপুরের পীরগঞ্জে চৈত্রকোল ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের মোজাব উদ্দিনের স্ত্রী রাবেয়া বেগম ২০১৬ সালের ১৩ নভেম্বর পীরগঞ্জের সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে ৮৬২৪ দলিল মূলে চৈত্রকোল ইউনিয়নের ৭ নং ওয়াড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী সুরুজ, ,দানিশনগরের সেতাবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম ও হাজিপুর গ্রামের জারজীস আহম্মেদ ওরফে বাবলুর নিকট নগদ দেড় লক্ষ টাকায় ১০ শতক জমি বিক্রয় করেন।

উক্ত জমি ক্রয়ের পরে তারা বসত বাড়ি নিমাণ করেন।
ওই এলাকায় জমির বতর্মান মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় রাবেয়া বেগম ওই জমি নিজের দাবী করে বসে। রাবেয়অ বেগম স্থানীয় কিছু পাতি নেতাকে সাথে নিয়ে জমি ক্রেতা আওয়ামীলীগ নেতা নুরুন্নবী ওরফে সুরুজ মিয়াসহ ৪ জনকে আসামী করে ৪ জুলাই পীরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। মামলার পরপরেই ভেন্ডাবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস আই মাহবুবুল আলম জমি ক্রেতা জারজীস আহম্মেদ বাবলুকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করনে। আজ পীরগঞ্জ থানার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রট জারজিজ আহম্মেদ বাবলুকে জামিনে মুক্তি দেন।
আওয়ামীলীগ নেতা সুরুজ মিয়া জানান, আমরা ২০১৬ সালে ৪ জন মিলে রাবেয়া বেগমের কাছ থেকে দেড় লক্ষ টাকা নগদ দিয়ে পীরগঞ্জ সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে দলিল সম্প্রাদন করি। বর্তমান জমির মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় রাবেয়া বেগম কিছু নব্য আওয়ামীলীগ নেতা ও দালালকে সাথে নিয়ে আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। যে ঘটনা দেখিয়ে মামলা করা হয়েছে সেই দিন ওই এলাকায় কোন ঘটনাই ঘটেনি।

রাবেয়া বেগম বলেন, ওরা আমার জমির জাল দলিল করে জোর পূবক করে বাড়ি ঘর নিমাণ করেছে।
পীরগঞ্জ থানার ওসি সুরেশ চন্দ্র বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পরে মামলা নিয়েছি। তদন্ত শেষে বলা যাবে আসল ঘটনা।


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah