সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ১১:৫৫ অপরাহ্ন

প্রতারনার স্বীকার বৃদ্ধার পাশে জাপার অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিষ্টার শামিম হায়দার

প্রতারনার স্বীকার বৃদ্ধার পাশে জাপার অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিষ্টার শামিম হায়দার

এনপিনিউজ৭১/আকাশ খান/ ৮ মে

পাটোয়ারী গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ দহবন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ ধুমাইটারী গ্রামের মৃত আসকার আলীর স্ত্রী সত্তরর্ধ্বো বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়া’র পেশা ভিক্ষাবৃত্তি। বয়সের ভারে নুয়ে পড়লেও এখনো তার বেঁচে থাকার একমাত্র উৎস এর ওর কাছে থেকে চেয়ে চিন্তে জীবন নির্বাহ। স্বামীকে হারিয়েছেন অনেক আগেই। পরিবারে আপন বলতে কেউ নেই। স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করেন আনোয়ার বেওয়া। প্রতিদিন ভিক্ষা করে যা আয় হতো, তা থেকে অল্প-অল্প করে ছয় হাজার টাকা জমিয়েছিলেন এই বৃদ্ধা।

বয়স্কভাতার কার্ড পেতে চেয়ারম্যান-মেম্বারের দ্বারে-দ্বারে বহুদিন ঘুরে বেড়িয়েছেন এই নারী। কেউ তাঁকে ভাতার কার্ড করে দেয়নি। ঠিক সেই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে প্রতিবেশী আবু বক্করের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক প্রস্তাব দেন ভিখারি আনোয়ারাকে। হাতের কাছে চাঁদ পেয়ে সাথে সাথেই রাজি হয়ে যান এই বৃদ্ধা। এরপর স্বপ্নের সেই বয়স্কভাতার কার্ড পাওয়ার আশায় ভিক্ষা করে জমানো ছয় হাজার টাকা তুলে দেন প্রতারক রাজ্জাকের হাতে। ওই পর্যন্তই এগিয়েছিল ভিখারি বৃদ্ধার বয়স্ক ভাতা প্রাপ্তির কার্যক্রম। এভাবেই আজ, কাল, পরশু করে কেটে গেছে জীবনের অন্তিমকালের মূল্যবান তিনটি বছর! কিন্তু অধরাই থেকে গেছে ভিখারি আনোয়ারা’র বয়স্কভাতা। এনিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ মে) দৈনিক জনসংকেত, গাইবান্ধা টাইমস, ও গাইবান্ধা প্রতিদিনে ‘ভিক্ষার টাকা দিয়েও কপালে মেলেনি সত্তরর্ধ্বো এক বৃদ্ধা’র বয়স্ক ভাতা কার্ড’ ! শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকশ করা হয়। সংবাদে স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ গাইবান্ধা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। এতে ২৪ ঘন্টা না পেরুতেই সাড়া দিয়েছেন গাইবান্ধা-১ আসনের (সুন্দরগঞ্জ উপজেলা) সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংসদ সদস্য’র এপিএস নুর মোহাম্মদ রাফি। তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, স্যার উপজেলা প্রশাসনকে বলে বৃদ্ধার বয়স্কভাতা কার্ড নিশ্চিত করেছেন। এ সময় তিনি গণমাধ্যমে’র প্রশংসা করে বলেন, আপনারা না হলে বিষয়টি আমরা জানতেই পারতামনা। এজন্য আপনাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এনপি৭১


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah