মঙ্গলবার, ২৭ Jul ২০২১, ০৭:০৫ অপরাহ্ন

ফণী’র আগমন বার্তায় শঙ্কায় আছে রংপুরবাসী

ফণী’র আগমন বার্তায় শঙ্কায় আছে রংপুরবাসী। দিনভর প্রচণ্ড গরম শেষে ভোররাত থেকে শুরু হয়েছে বৃষ্টি। এতে স্বস্তির পরিবর্তে বেড়েছে ফণীর তাণ্ডবভীতি।

শুক্রবার (৩ মে) ভোররাতে সাড়ে ৪টার দিকে বৃষ্টি শুরু হয়। একই সঙ্গে বইছে ঠাণ্ডা বাতাস। ফলে সকাল থেকে কর্মক্ষেত্রে বের হতে পারছেন না অনেকেই।

সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ফণীর লক্ষণ শুরুর সেই বিপদ সংকেত ঘোষণার পর থেকে সারাদেশের মতো রংপুর জেলার মানুষের মধ্যেও আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিশেষ করে নদী বেষ্টিত এই জেলার কাউনিয়া, বদরগঞ্জ, গঙ্গাচড়া, পীরগঞ্জ, পীরগাছা উপজেলার সাধারণ মানুষ শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

রংপুর সিটি করপোরেশনের শাপলা চত্বর এলাকার বাসিন্দা এম এ মজিদ  বলেন, ‘ভোররাতে বৃষ্টি শুরু হইছে। আল্লাই জানেন এবার কী হয়। শুনেছি ঘূর্ণিঝড় ফণী অনেক শক্তিশালী। যদি এই ঝড় রংপুরের ওপর দিয়ে বয়ে যায় তাহলে মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হবে।’

এদিকে, শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ দেশের উত্তরের জেলা রংপুরের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় রংপুর সিটি করপোরেশনের গুরুত্বপূর্ণ তিন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। সার্বক্ষণিক তথ্য গ্রহণে খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম।

সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, ‘বিদ্যুৎ বিভাগ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ ও বিজ্ঞাপন-প্রচারণা বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের শুক্রবার এবং শনিবারের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ফণীতে তাদেরকে সজাগ থাকার কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

মেয়র বলেন, ‘আবহাওয়া অধিদফতরের সর্বশেষ তথ্য মতে শুক্রবার বিকেল থেকে রাতের মধ্যে যে কেনো সময় বাংলাদেশে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। এতে যদি রংপুরে কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়, সে ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ বিভাগ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ ভেঙে পড়া গাছপালা এবং ময়লা আবর্জনা অপসারণ করবে। পাশাপাশি নগরবাসীকে সতর্ক এবং ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় তৎপর হতে সতর্ক করা হচ্ছে।’

এদিকে ঘূর্ণিঝড় পূর্বাভাস সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট (windy.com) থেকে পাওয়া স্যাটেলাইট চিত্রের বিশ্লেষণ থেকে জানা যায়, ঘূর্ণিঝড় ফণী খুব দ্রুত গতিপথ পরিবর্তন করছে। তবে বর্তমান গতিপথ অপরিবর্তিত থাকলে তা দেশের উত্তরাঞ্চলের ওপর দিয়েও বয়ে যেতে পারে।

রংপুর অঞ্চল ফণী’র সম্ভাব্য কেন্দ্র হয়ে উঠতে পারে উল্লেখ করে নিজের এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের অফিসিয়াল ফেসবুকে পেজে সতর্কতামূলক পোস্ট দিয়েছেন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। সেখানে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ পরবর্তী জরুরি প্রয়োজনে (০১৭৩৫-৬৭৯৪০১ এবং ০৫২১-৬৫৬৯৯) নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah