শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫২ অপরাহ্ন

বিয়ে বাড়ির ছবি তোলা নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ,আহত ২২

বিয়ে বাড়ির ছবি তোলা নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ,আহত ২২

নিউজ ডেক্সঃ
কুমিল্লা জেলার হোমনায় বিয়েবাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুটি গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অন্তত ২২ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় হোমনা উপজেলার দুটি গ্রামে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার বড় ঘারমোড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

ঘারমোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান মোল্লা জানান, ঘারমোড়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ের বিয়ে ঠিক হয় উপজেলার বাগমারা গ্রামের এক ছেলের সঙ্গে। গত শুক্রবার বিয়ের দিন নির্ধারিত হয়। বৃহস্পতিবার রাতে ওই বিয়ের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে গিয়ে পার্শ্ববর্তী হুজুরকান্দি গ্রামের কয়েকজন ছেলে মোবাইল ফোনে ছবি তোলে। এই ছবি তোলা নিয়ে ওই রাতেই বিয়েবাড়ির লোকজন হুজুরকান্দির চার-পাঁচজন ছেলেকে মারধর করেন। পরদিন সকালে ইউনিয়নের বড় ঘারমোড়া বাজারে বাগাকান্দা গ্রামের এক বৃদ্ধ দুধ বিক্রি করতে আসলে রাতে মারধরের জেরে হুজুরকান্দির কয়েকজন ছেলে তাকে মারধর করে। এই ঘটনায় ঘারমোড়া গ্রামের সাব মিয়ার ভাই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে হুজুরকান্দি গ্রামের ১৫ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেন। পুলিশ হুজুরকান্দি গ্রামের বকুল নামের একজনকে গ্রেফতার করে। এরপর থেকে ঘারমোড়া ও হুজুরকান্দি গ্রামবাসীদের উত্তাপ ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। পাল্টাপাল্টি মারধরের বিষয়কে কেন্দ্র করে রবিবার সকালে হোমনার বড় ঘারমোড়া বাজারে ঘারমোড়ার বাগাকান্দা ও হুজুরকান্দি গ্রামবাসী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। ঘারমোড়া গ্রামবাসীর দাবি, সংঘর্ষের সময় হুজুরকান্দি গ্রামের লোকজন তাদের ওপর গুলি করেছে। গুলিতে তাদের একাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

চেয়ারম্যান শাহজাহান আরও বলেন, ‘সংঘর্ষের সময় আমি উপস্থিত ছিলাম। তবে সংঘর্ষে দুই গ্রামের কতজন আহত হয়েছেন, তার সঠিক তথ্য আমার কাছে নেই। শুনেছি যে কয়জন আহত হয়েছেন তাদের মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।’

ঘারমোরা গ্রামের আউয়াল মিয়া বলেন, ‘বৃহস্পতিবার হুজুরকান্দি গ্রামের কয়েকজন বখাটে ছেলে আমাদের বাড়িতে এসে মেয়েদের ছবি তোলে। সেই ছবি ডিলিট করা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। আজ সকালে হুজুরকান্দি গ্রামের লোকজন ইয়ারগানসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের গ্রামের লোকজন ওপর হামলা করে। তাদের হামলা ও গুলিতে ২২ জন আহত হয়েছেন।’

এদিকে হুজুর কান্দিগ্রামের গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘ছেলেপেলেদের মধ্যে সমস্যার ঘটনা আমরা মিটমাট করার জন্য চেষ্টা করছিলাম। সে সময় ঘারমোরা গ্রামের লোকজন আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ১০-১২ জন আহত হয়েছেন। কোনও গুলির ঘটনা ঘটেনি। তাদের ইটের আঘাতে আমাদের লোকজন আহত হয়েছে।’

হোমনা থানার ওসি মো. আবুল কায়েস আখন্দ বলেন, ‘তিন দিন আগে বিয়েবাড়িতে ছবি তোলা নিয়ে ঘারমোড়ার বাগাকান্দা ও হুজুরকান্দির গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। দুই গ্রামবাসীর সঙ্গে বসে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে।’


© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এনপিনিউজ৭১.কম
Developed BY Rafi It Solution