সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:১৬ অপরাহ্ন

বৃদ্ধা শ্বশুড়-শাশুড়ির ফ্লাট জামায়ের দখল: থানায় অভিযোগ

বৃদ্ধা শ্বশুড়-শাশুড়ির ফ্লাট জামায়ের দখল: থানায় অভিযোগ

বৃদ্ধা শ্বশুড়-শাশুড়ির ফ্লাট জামায়ের দখল: বাড়িতে উঠতে চাইলে গেটের মধ্যে জামাই বড় তালা ঝুলিয়ে দেন জামাই।

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর ১৮ সেপ্টেম্বর
অসুস্থ্য শশুর-শাশুড়ীর বাড়ির ফ্লাট জামাইয়ের দখলে ছাড়তে নারাজ জামাই। এই ঘটনাটি ঘটেছে সৈয়দপুর পৌর বাজার এলাকায়। এঘটনায় সৈয়দপুর থানায় একটি অভিযোগ হয়েছে।

এজাজ আহমেদের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা রংপুরে থাকা কালীন অবস্থায় মে-হুমায়রা আকতার রুবি ও জামাই ওয়াকার আহমেদ মিন্টুকে সাময়িক ভাবে থাকার জন্য বাসাটি দিয়ে থাকে। সে সময় বলা হয়েছে বাড়িটি যখন চাওয়া হবে তখনেই ফাকা করে দিতে হবে।

এজাজ আহমেদের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা বলেন, বর্তমানে আমার স্বামী প্যারালাইস্ড অবস্থায় বেশ কয়েক বছর ধরে অসুস্থ্য রয়েছেন। আমাকে সঙ্গে নিয়ে সৈয়দপুর সিনেমা রোডে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে আমরা জীবন-যাপন করছি। স্বামীর চিকিৎসা আর বাড়ি ভাড়া দেয়ার মতো আর্থিক অবস্থা নেই আমাদের। বাড়ি ভাড়া ও চিকিৎসার খরচ চালাতে গিয়ে অনেক সময় আত্নীয়-স্বজনদের কাছে হাত পাততে হয়। অর্থের অভাবে অনেক সময় না খেয়ে থাকতে হয়। আমার এক ছেলে ব্যবসার কারণে রংপুরে বসবাস করেণ।

তিনি আরোও বলেন, আমার মে হুমায়রা ওয়াকার (রুবি) ও জামাই ওয়াকার আহমেদ মিন্টু আমার স্বামীর গড়া সৈয়দপুর শেরে বাংলা রোডের পশ্চিম পাশে অবিস্থত বাড়িটিতে অবস্থান করতেছে। আমাদের ভরণ-পোষণ এর দায়িত্ব ছিলো। কিন্তু মে ও জামাই আমাদের ভরণ-পোষন দেখভাল তো দূরের কথা আমাদের ফ্লাটটি ফেরত চাইলে ফেরত দিতে অস্বীকার করেন, এবং আমাদের স্বামী-স্ত্রীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন ও আমাদের বাড়ি থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়।

বেশ কয়একবার পারিবারিক ভাবে আত্নীয়-স্বজনের মাধ্যমে বৈঠক করিয়াও এর কোন সুরাহা সম্ভব হয় নাই। কোন উপায় না পায়া সৈয়দপুর থানায় আমরা একটা লিখিত অভিযোগ করেছি। ন্যায বিচারের আশায় যেনো ফ্লাটটি খলি করিয়া দেয় আমাদেরকে, আমরা যেনো আমাদের বাসায় প্রবেশ করতে পারি।

এবিষয়ে সৈয়দপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ আবুল হাসনাত খান বলেন, আমার একটা লিখিন অভিযোগ পেয়েছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah