মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০৫ পূর্বাহ্ন

বেরোবিতে অযোগ্যকে ভাইভা কার্ড

বেরোবিতে অযোগ্যকে ভাইভা কার্ড

নাজমুল হুদা নিমু, বেরোবি প্রতিনিধি:  বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) মেডিকেল সেন্টারে সিনিয়র অফিসার পদে নিয়োগে যোগ্য প্রার্থীকে বাদ অযোগ্যদের ভাইভা কার্ড ইস্যু করার অভিযোগ উঠেছে। এতে প্রশাসনের ঘনিষ্ঠ কর্মকর্তার নিজের ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য প্রশাসনের পছন্দের ব্যক্তিসহ মোট পাঁচজনকে ভাইভা কার্ড ইস্যু করে প্রশাসন। এ ঘটনায় অযোগ্য প্রার্থীর কার্ড ও বোর্ড বাতিল করে যোগ্য প্রার্থীকে ভাইভা কার্ড ইস্যু করার অনুরোধ জানিয়ে ভিসি বরাবর চিঠি দেন কার্ড বঞ্চিত ডা. শর্মিলা সরকার রুমা।
এরই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে ঢাকার লিয়াজো অফিসে সিনিয়র মেডিকেল অফিসার পদে ভাইভা বোর্ড অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও প্রার্থীর আবেদন ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের চাপে পড়ে বোর্ড স্থগিত করে প্রশাসন। এতে একটি পদের বিপরীতে সংস্থাপন শাখার ওই জ্যৈষ্ঠ কর্মকর্তার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী নিয়োগ পেতেন বলে এক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।
জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারিতে মেডিকেল অফিসার পদে (৩৫,৫০০টাকা স্কেল) জাতীয় দৈনিকে একটি বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়। সেখানে মেডিকেলে ৭ বছরের অভিজ্ঞতা উল্লেখ ছিল। এতে একটি পদের বিপরীতে মোট ৯ জন প্রার্থী আবেদন করেন। যাচাই -বাছাই শেষে গত ৩০ এপ্রিল পাঁচজনকে ভাইভা কার্ড ইস্যু করা হয়। নিয়ম অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত ভাইভা কার্ড ইস্যু করার কথা থাকলেও সংস্থাপন শাখার জ্যৈষ্ঠ কর্মকর্তা উপ রেজিস্ট্রার খন্দকার গোলাম মোস্তফা স্বাক্ষর করেন।
এ বিষয়ে অভিযোগকারী প্রার্থী ডা. রুমা লিখিত অভিযোগে বলেন, সংস্থাপন শাখার অভ্যন্তরীণ প্রার্থী থাকায় উনি বেশি যোগ্য প্রার্থীর কার্ড বাতিল করে কম যোগ্য প্রার্থীকে কার্ড প্রদান করেন যা স্বজনপ্রীতির উৎকৃষ্ট উদাহরণ। নয়জন প্রার্থীর ভেতর পাঁচজন প্রার্থীকে কার্ড দেয়া হয় যার মধ্যে একজন যোগ্য ব্যক্তিকে নেওয়া হবে। ‘আমার আবেদন যেন সুষ্ঠুভাবে দেখা হয়’ডা. রুমার।
এ বিষয়ে রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষর নিজেই করেছেন বলে স্বীকার করে সংস্থাপন শাখার উপ-রেজিস্ট্রার খন্দকার গোলাম মোস্তফা বলেন, “রেজিস্ট্রার না থাকায় আমি তার নির্দেশে স্বাক্ষর করেছি। নিজের ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগের জবাবে  তিনি বলেন, “বাছাই বোর্ড পাঁচজনকে যোগ্য মনে করেছেন। আর তাদেরই ভাইভা কার্ড ইস্যু করতে বলেছেন, আমি তাই করেছি। ”
এ বিষয়ে রেজিস্ট্রার আবু হেনা মুস্তফা কামাল ও ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর দপ্তরে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। অফিসের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, রেজিস্ট্রার আবু হেনা মুস্তফা কামাল ও ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ ঢাকায় অবস্থান করছেন। এ বিষয়ে তাদের দুজনকেই একাধিকবার ফোন ও ম্যাসেজ করলেও কোনো যোগাযোগ সম্ভব হয়নি।
এনপিনিউজ/আশিক


© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এনপিনিউজ৭১.কম
Developed BY Rafi It Solution