সংবাদ শিরোনাম :

বেরোবিতে উপাচার্যের অনুপস্থিতিতে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে।

মহসিন রংপুর মহানগর প্রতিবেদক

রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ নিয়ম ভঙ্গ করেই চলেছেন।  দিনের পর দিন তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকেন না।  বেশিরভাগ সময় ঢাকায় অবস্থান করেন।  উপাচার্যের অনুপস্থিতিতে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে।

রাষ্ট্রপতি যে তিনটি শর্তে অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহকে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগ দিয়েছেন, তার প্রধান শর্ত  ক্যাম্পাসে সার্বক্ষণিক উপস্থিত থাকতে হবে।  কিন্তু তিনি তা মানছেন না।

গত বছরের ডিসেম্বর ও চলতি বছরের জানুয়ারি, দুইমাসে উপাচার্য ক্যাম্পাসে অবস্থান করেন মাত্র আটদিন।  তাও কয়েক ঘন্টার জন্য।  তিনি সকালের ফ্লাইটে এসে বিকেলে ঢাকা চলে যান।  আর এর বেশিরভাগ সময়ই তিনি কাটান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সভা ও সেমিনারে।

স্থানীয় বিশিষ্টজনরা বলছেন, রংপুরের মানুষ সর্বোচ্চ এই বিদ্যাপিঠ নিয়ে যে স্বপ্ন লালন করে, উপাচার্যের গাফিলতিতে সব ভণ্ডুল হয়ে যাচ্ছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি, গুরুত্বপূর্ণ কাজেই ঢাকায় থাকেন উপাচার্য।  এতে প্রশাসনিক ও একাডেমিক কাজে তেমন প্রভাব পড়ছে না।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ে অনিয়মিত হলেও, উপাচার্য একাই ২৬টি কোর্সের দায়িত্বে এবং প্রতিটি কোর্সে সেমিস্টার প্রতি ৫০ হাজার টাকা পেয়ে থাকেন।

Related Posts

leave a comment