বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন

মেয়রের করা ডিজিটাল নিরাপত্বা আইনের মামলায় সাংবাদিক রতন সরকার এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় যা বললো সিটি পরিষদ

মেয়রের করা ডিজিটাল নিরাপত্বা আইনের মামলায় সাংবাদিক রতন সরকার এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় যা বললো সিটি পরিষদ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সাংবাদিক রতন সরকারের বিরুদ্ধে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার করা ডিজিটাল নিরাপত্বা আইনের মামলায় সাংবাদিক রতন গ্রেফতার না হওয়ায় শংকা ও উদ্বেগ প্রকাশ করে মঙ্গলবার দুপুরে সিটি কর্পোরেশনের হলরুমে সংবাদ সম্মেলন করে আবারও তাকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতারের আল্টিমেটাম দিয়েছেন সিটি পরিষদ। গ্রেফতার না হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে সিটি পরিষদ বলেছে এটা রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ব্যর্থতা। এর মাধ্যমে রংপুর মেট্রোপুলিশের কাছে সাধারণ মানুষ ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়ে শংকিতও বলে অভিযোগ করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে। সাংবাদিক সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য হুবহু পাঠকদেও জন্য তুলে ধরা হলো।

 

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম
সুনির্দিষ্ট ডকুমেন্টসহ রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র কর্তৃক ডিজিটাল নিরাপত্বা আইনে সাংবাদিক রতন সরকারের বিরুদ্ধে মামলার ৬০ ঘন্টা পরেও গ্রেফতার না হওয়ায় সিটি পরিষদের সাংবাদিক সম্মেলন

তারিখ: ২৭ এপ্রিল ২০২১, স্থান: হল রুম, রংপুর সিটি কর্পোরেশন

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ
আসসালামু আলাইকুম। রংপুর সিটি পরিষদের পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাই পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা। একটি গুরুত্বপুর্ন বিষয়ে আপনাদের অবহিত করতেই আজকের এই সংবাদ সম্মেলন।

সুুপ্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ
আপনারা ইতোমধ্যেই অবগত আছেন, রংপুরে বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল বাংলাভিশনের সিনিয়র প্রতিবেদক আনজারুল ইসলাম ওরফে জুয়েল আহমেদ এবং সময় সংবাদের সিনিয়র প্রতিবেদক মমিনুর রহমান সরকার ওরফে রতন সরকারের মধ্যে গত ২২ এপ্রিল ২০১২১ এ সংঘটিত ঘটনাটি। কিন্তু আমরা অত্যন্ত দু:খ এবং উদ্বিগ হয়ে জানাচ্ছি ওই দুই সিনিয়র সাংবাদিকের মধ্যকার সেই অপ্রীতিকর ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে বিবাদমান সাংবাদিক রতন সরকার ঘটনাটিকে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র জনাব মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা এবং রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ওপর চাপিয়ে নির্জলা মিথ্যাচারে লিপ্ত হন। সাংবাদিক রতন সরকার ওই দিন সিটি কর্পোরেশনের সামনে  অনলাইন  পেজ টিভিতে
এ মিথ্যাচার করে বলেন, ‘রংপুর সিটি করোরেশনের মেয়র প্রেসক্লাবের কতিপয় নীতিহীন সাংবাদিককে কিনে তাকে হত্যার চেষ্টা করেছেন। জনগনের জন্য সরকারের দেয়া টাকা অনিয়ম করেছেন এবং দূর্নীতির রিপোর্ট করায় তাকে মেয়র মানুষ দিয়ে হত্যার চেষ্টা করছেন এবং রংপুর প্রেসক্লাবকে লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়ে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম ষড়যন্ত্র করেছেন।
শুধু তাই নয় ২৩/০৪/২০২১ ইং তারিখে সাংবাদিক রতন সরকার তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক ‘ যঃঃঢ়ং://িি.িভধপবনড়ড়শ.পড়স/ৎধঃধহ.ংধৎশবৎ.৩৩ আই.ডি তে এই বলে পোষ্ট দেন ,‘ মাননীয় মেয়র টাকা দিয়ে প্রেসক্লাবের কতিপয় নীতিহীন সাংবাদিককে কিনে ফেলতে পারেন। রাজাকারের বাচ্চাকে দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা করতে পারেন। কথা দিচ্ছি জনগণের জন্য সরকারের দেয়া এক টাকার অনিয়ম আপনাকে করতে দেবো না ইনশাআল্লাহ। এটা আমার মাতৃভূমির কসম, আমার মায়ের, বাবার কসম।’

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ,
সাংবাদিক রতন সরকার দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং তার মিডিয়ায় এভাবে প্রতিনিয়তই মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট এবং মনগড়া বক্তব্য দিয়ে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র, সিটি পরিষদ এবং সিটি কর্পোরেশনের মানহানি করে আসছেন। সে কারণে সিটি পরিষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাননীয় মেয়রের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও অনলাইন ফেসবুক পেজ এবং মিডিয়ায় সাংবাদিক রতন সরকারের দেয়া মিথ্যাচার, বানোয়াট ও মনগড়া তথ্যের প্রমাণ উপস্থাপন করে মাননীয় মেয়র রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানায় গত ২৪-০৪-২১ তারিখে সুস্পস্ট ডকুমেন্ট সংযোজন করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫(২)/২৯(১)/৩১(১)/৩১(২) ধারায় মামলা করেছেন। যার নম্বর-৫৫।( কপি সংযুক্ত।)

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ।
আমরা আরও উদ্বিগ্ন একারণে যে তিনি জাতির বিবেক বলে খ্যাত ‘ রংপুর প্রেসক্লাবের মতো একটি ঐতিহ্যবাহি সাংবাদিক সংগঠনের সাথে যুক্ত দেশের প্রথম শ্রেনির প্রেস, ইলেক্ট্রনিক্স ও অনলাইকে কর্মরত সাংবাদিকদের নীতিহীন এবং লাখ লাখ টাকায় সাংবাদিকদের কিনে নেয়ার মত’ মানহানিকর বক্তব্য তার ফেসবুক আইডি ও অনলাইন ফেসবুক পেজে সরাসরি উপস্থাপন করেছেন। যা চারণ সাংবাদিক মোনাজাত উদ্দিনের রংপুরের সাংবাদিকদের দীর্ঘদিনের মর্যাদাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে বলেও আমরা মনে করি।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ
সুর্নিদিস্ট ডকুমেন্ট সংযোজন করে আইসিটি আইনে মামলা করার ৬০ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও সাংবাদিক রতন সরকাকে এখনও পুলিশ গ্রেফতার না করায় আমরা উদ্বিগ্ন ও শংকিত। ইতোমধ্যেই আমরা ২৫-০৪-২১ তারিখ রাতে সিটি পরিষদের ৩৩ জন সাধারণ এবং ১১ জন মহিলা কাউন্সিলর যৌথভাবে কোতয়ালী থানায় স্বশরীরে গিয়ে পুলিশের কাছে সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতারের দাবি জানাই। কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ ২৬-০৪-২১ তারিখ সন্ধার মধ্যেই তাকে গ্রেফতারের জন্য আমাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েও তাকে গ্রেফতার করে নি। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে সুনির্দিষ্ট আইনে মামলা হওয়ার পরেও সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতার না করার বিষয়টি রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ব্যর্থতা। যা সমাজের প্রত্যেকটি মানুষকেও উদ্বিগ্ন করেছে। তারাও শংকিত রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে ন্যায় বিচার পাওয়া নিয়ে।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ।
উদ্ভুত পরিস্থিতিতে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন এই কারনে যে, ইতোমধ্যেই সাংবাদিক রতন সরকার তার ফেসবুক আইডিতে সরকারি, বেসরকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট, উস্কানীমুলক পোস্ট দিয়ে অলিতে গলিতে শত্রুতা তৈরি করে রেখেছেন। তাকে গ্রেফতার না করায় যদি তিনি তার শত্রু পক্ষের দ্বারা ক্ষতির সম্মুখিন হন তাহলে তার সম্পুর্ন দায় দেনা পুলিশ প্রশাসনকেই বহন করতে হবে। রংপুর সিটি মেয়র ও সিটি পরিষদ তার ক্ষতির কোন দায়দায়িত্ব বহন করবে না।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ।
আমরা এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিক রতন সরকারকে ২৪ ঘন্টার মধ্যেই গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি মেট্রোপলিন পুলিশ কমিশনারের কাছে। তা না হলে সিটি পরিষদ সিদ্ধান্ত নিয়ে লাগাতর কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে।

শ্রদ্ধেয় সাংবাদিকবৃন্দ
আমাদের বক্তব্য এতক্ষণ ধরে শোনার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। পাশাপাশি এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপিত বিষয়টি আপনার মিডিয়ায় প্রকাশ করে দেশবাসিকে প্রকৃত সত্যটি উপস্থাপনের আহবান জানাচ্ছি। আবারও পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা।

নিবেদক
মাহমুদুর রহমান টিটু
প্যানেল মেয়র-১
রংপুর সিটি পরিষদের পক্ষে

 

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah