বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৩৮ অপরাহ্ন

রংপুরের টুকুরিয়া কেন্দ্রের সামনে নৌকা ও আনারস প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা, পুলিশের ধাওয়া লাঠিচার্জ

রংপুরের টুকুরিয়া কেন্দ্রের সামনে নৌকা ও আনারস প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা, পুলিশের ধাওয়া লাঠিচার্জ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:
রংপুরের পীরগঞ্জের টুকুরিয়া ইউনিয়নের ছাতুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে নৌকা প্রার্থী কর্মীরা আনারস প্রার্থীর কর্মীদের মেরে ফেলার হুমকি দিলে উত্তেজনা তৈরি হয়। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে লাঠিচার্জ করে উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া একটায় কেন্দ্রের সামনে ফিরোজ আলম নামে পীরগঞ্জ যুবলীগের এক নেতা এসে নৌকা মার্কার সমর্থকদের একত্রিত করে ঘোষণা দেন, ‘এখানে নৌকা ছাড়া আর কিছুই থাকবে না। আনারস সমর্থকদের মাটিতে পুঁতে ফেলো।’
এতে উত্তেজিত হয়ে ওঠে আনারস প্রতীকের সর্মথকরা। শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা। বাকবিতন্ডাসহ হাতাহাতি হয় এ সময়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পুলিশ ধাওয়া দিয়ে ও লাঠিচার্জ করে উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেন।
এই ঘটনার পর সেখানে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

আনারস প্রতীকের প্রার্থী মিজানুর রহমান শাহিন এর অভিযোগ, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী প্রার্থীর পক্ষে বিপুল পরিমান বহিরাগত লোকজন এসে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছে। তারা কেন্দ্রে কেন্দ্রে গিয়ে আনারস প্রতীকের সমর্থক কর্মী ও ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। এতে ভোট সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ছাতুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে বহিরাগত ফিরোজ আলম এসে আমাদের সামর্থ্য কর্মীদের ওপর হামলা চালায়।

এই অভিযোগ অস্বীকার করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আতাউর রহমান মণ্ডল জানান, আনারস প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকরা নৌকা প্রতীকের সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে আসতে নানাভাবে বাধাগ্রস্ত করছে।

কেন্দ্রের দায়িত্বরত পুলিশের এএসআই নারায়ণচন্দ্র জানান, কেন্দ্রের বাইরে নৌকা ও আনারস প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হলে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ধাওয়া দিয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত


© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এনপিনিউজ৭১.কম
Developed BY Rafi It Solution