শনিবার, ৩১ Jul ২০২১, ০৭:০২ অপরাহ্ন

রংপুরে উচ্ছেদ অভিযানে প্রাণ ফিরলো সিটি বাজারে

রংপুরে উচ্ছেদ অভিযানে প্রাণ ফিরলো সিটি বাজারে

নিজেস্ব প্রতিবেদক/ রংপুর ২২ জুন

রংপুরে করোনার সংক্রমণ ঝুঁকি রোধ ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কের দু’পাশ থেকে অবৈধ স্থাপনা, কাঁচা তরকারি ও ফলমুলের অস্থায়ী দোকান উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন।

সোমবার দুপুরে রংপুর সিটি করপোরেশন রোড সংলগ্ন সিটি বাজার থেকে রাজা রামমোহন মার্কেট পর্যন্ত সড়কের দু’পাশে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়।

এসময় সিটি বাজারের প্রবেশ পথ থেকে শুরু করে ভিতরে চলাচলে রাস্তার ওপর বসানো অস্থায়ী দোকানপাট সরিয়ে দেয়া হয়। এতে করে দীর্ঘ দুই যুগ পরও সিটি বাজারের ভিতরে বাহিরে যেন প্রাণ ফিরে এসেছে। স্বস্তি ফিরেছে নগরবাসীর মনেও।

রংপুর বিভাগীয় প্রশাসন, জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, মেট্রোপলিটন পুলিশ ও সেনাবাহিনীর যৌথ উদ্যোগে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রায়হানুল কবির।


অভিযানের সময় প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানান, দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে একটি অসাধু মহল সিটি করপোরেশনকে জিম্মি করে নগরীর প্রধান সড়কের অর্ধেক জায়গা দখলে নিয়ে অবৈধ স্থাপনা নির্মান করেছে। সেখানে ফলমুল, কাঁচা মালসহ বিভিন্ন ধরনের অস্থায়ী দোকানপাট বসিয়ে রাস্তা দখল করে আছে। সিটি বাজারে এই দুর্যোগের সময় কোনো রকমে স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব না মানায় বাজারটি করোনার হটস্পটে পরিনত হয়েছিলো। একারণে যৌথ উদ্যোগে এ সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

একই সাথে সরকারি নির্দেশনা অমান্য কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে মাঠে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রংপুর মেট্রোপলিটান পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার জমির উদ্দিন বলেন, নগরীর প্রধান সড়ক দখল করে অবৈধ স্থাপনা বা দোকানপাট আর বসাতে দেয়া হবে না। এনিয়ে কেউ বাড়াবাড়ি করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অন্যদিকে রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, রংপুরে সিটি বাজার করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ স্পট। দীর্ঘদিন ধরে এই বাজারের কিছু ব্যবসায়ী রাস্তার উপর দোকানপাট বসিয়ে ব্যবসা করছে। তাদেরকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। এখন করোনার সংক্রমণ রোধে থেকে কাঁচা বাজার রাস্তার উপর বসতে দেয়া হবে না। বিকল্প হিসেবে টাউন হল ও কালেক্টরেট মাঠে তাদের ব্যবসা করতে হবে।

এদিকে সিটি বাজার দখলমুক্ত ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করায় প্রশাসনকে সাধুবাদ জানিয়েছে সাধারণ মানুষ। তারা স্বস্তি প্রকাশ করে বলেন, এই উচ্ছেদ যেন স্থায়ী হয়। কারণ এর আগেও বহুবার নগরীতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করতে দেখা গেছে। কিন্তু কয়েক মাস না পার হতেই ব্যবসায়ীরা আবার সড়কে জায়গা দখল করে দোকানপাট বসিয়েছেন। একারণে সড়কে যানজটসহ বিভিন্ন সমস্যা প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হয়ে আসছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আবদুল আলিম মাহমুদ, উপ-পুলিশ কমিশনার শহিদুল্লাহ কাওসার, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন মিঞা, রংপুর মহানরগ আওয়ামলীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি, সাধারন সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল সহ পুলিশ ও সেনা বাহিনীর সদস্যবৃন্দ।

এনপি৭১


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah