রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০১:২৯ পূর্বাহ্ন

রংপুরে সাংবাদিকদের দু’গ্রুপ মুখোমুখি

রংপুরে সাংবাদিকদের দু’গ্রুপ মুখোমুখি

  1. রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের একটি অংশ রংপুর টাউন হলে অভিষেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। প্রতিপক্ষ একটি অংশ একই স্থানে রংপুরের উন্নয়ন ও সম্ভাবনা শীর্ষক সাংবাদিক সংগতি সমাবেশের ডাক দিয়েছে। ফলে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রিপোর্টাস ক্লাবের দুই গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থান করায় যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে। রাত সাড়ে ৯ টায় এ খবর লেখা পর্যন্ত পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পুলিশ প্রশাসন দুই গ্রুপের সাংবাদিকদের সাথে জরুরি বৈঠকে বসেছে।

    আজ বুধবার সন্ধ্যা ছয়টায় রংপুর টাউন হলে সংগঠনটির একাংশ তাদের নবগঠিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এজন্য তারা প্রচার প্রচারণা ও সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করে।

    অপর অংশটি একই দিনে বিকেল থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত একই স্থানে রংপুরের উন্নয়ন ও সম্ভাবনা শীর্ষক সাংবাদিক সংগতি সমাবেশের ডাক দিয়েছে। এঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’টি গ্রুপের মধ্যে দিনভর উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

    সংগঠনটির যে অংশটি সাংবাদিক সংহতি সমাবেশের ডাক দিয়েছে তারা আজ মঙ্গলবার বিকেল বেলা টাউন হলের সম্মুখে তাদের অনুষ্ঠান প্রস্তুতি গ্রহণ করে। এই নিয়ে সন্ধ্যার পর থেকে দু’টি পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য পক্ষ দু’টিকে মৌখিকভাবে অনুরোধ জানায়। এরপরও তারা নিজেদের পক্ষে অনড় থাকায় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার তার অফিস কক্ষে দুই গ্রুপের নেতৃবৃন্দকে ডেকে পাঠান। সেখানে রুদ্ধ দ্বার বৈঠকে উভয় পক্ষের মাঝে সমঝোতার ভিত্তিতে নিজ নিজ অনুষ্ঠান কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য অনুরোধ জানান। কিন্তু অভিষেক আয়োজনকারী অংশটি নিজেদের ঘোষিত অনুষ্ঠান নিয়ে অনড় থাকেন এবং তারা অনুষ্ঠান সফল করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

    অপরপক্ষ তাদের অনুষ্ঠান কর্মসূচি নিয়ে অনড় অবস্থানে থেকে পুলিশের সহায়তা কামনা করেন। ফলে পুলিশ প্রশাসন এনিয়ে চরম বিব্রতকর অবস্থায় পরে।

    মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের দপ্তর থেকে উভয় পক্ষের প্রতি কড়া নির্দেশনা জারি করে জানিয়ে দেয়া হয় এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে তার দায় উভয় পক্ষকে নিতে হবে। বিবাদমান দু’টি বিরোধ মিটিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠান করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়।

    এবিষয়ে জানতে চাইলে রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, ‘সংগঠনটির একটি পক্ষ একজন মন্ত্রী মহোদয়, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ও পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি’র নাম উল্লেখ করে দাওয়াত পত্র নিয়ে টাউন হলে অনুষ্ঠান করার আবেদন করায় তাদের অনুমতি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে পরিস্থিতি জটিল হওয়ায় বিষয়টি মেট্রোপলিটর পুলিশ কমিশনারের দপ্তরে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পত্র দেওয়া হয়েছে।’

    একই বিষয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিএসবি) আলতাফ হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কোন অবনতি ঘটতে দেয়া যাবে না। এ ব্যাপারে আমরা কঠোর অবস্থানে রয়েছি। উভয় পক্ষকে সমঝোতার ভিত্তিতে অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য অনুরোধ করে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। পরিস্থিতি বুঝে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

    সাংবাদিক সংহতি সমাবেশের সদস্য সচিব নজরুল ইসলাম রাজু বলেন, তারা বেশ কিছু দিন পূর্বে তাদের ওই অনুষ্ঠান কর্মসূচির প্রস্তুতি গ্রহণ করে প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। তাই আমরা শান্তিপূর্ণভাবে এই অনুষ্ঠান করতে চাই। যাতে কেউ বাধা না দেয় সেই জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছি।

    অভিষেক উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক শাহ্ বায়েজিদ আহম্মেদ বলেন, আমাদের কোন গ্রুপিং নাই। আমাদের ক্লাবের সকল সদস্য মিলে আমাদের ঘোষিত কর্মসূচি পালন করবো

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah