সংবাদ শিরোনাম :

রংপুর-৩ উপ-নির্বাচন আওয়ামীলীগের প্রার্থী এডভোকেট রাজু উপনির্বাচন থেকে সরে দাড়ালেন: তৃণ মূলের ক্ষোভ 

রংপুর-৩ উপ-নির্বাচন আওয়ামীলীগের প্রার্থী এডভোকেট রাজু উপনির্বাচন থেকে সরে দাড়ালেন: তৃণ মূলের ক্ষোভ 

রংপুর-৩ উপ-নির্বাচন আওয়ামীলীগের প্রার্থী এডভোকেট রাজু উপনির্বাচন থেকে সরে দাড়ালেন: তৃণ মূলের ক্ষোভ 

রংপুর-৩ উপ-নির্বাচন
আওয়ামীলীগের প্রার্থী এডভোকেট
আল আমীন,  সুমন
হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শুন্য রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এরশাদের প্রতি সম্মান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এদিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সরে দাঁড়ানোর দলের তৃণমূল থেকে সচেতন ভোটারদের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে।সোমবার (১৬ জুলাই) বিকেল সাড়ে তিনটায়. সাথে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক তৌহিদুর রহমান টুটুল। তিনি, ‘এটি কোন গুজব নয়। আমাদের দলীয় সিদ্ধন্ত ও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু। সোমবার বিকেলে সাড়ে চারটায় রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন আওয়ামীলীগ থেকে জমা দেয়া প্রার্থী রেজাউল করিম রাজু।’‘আমার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা গত ৭ সেপ্টেম্বর গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে। সেইদিন রংপুর উপ নির্বাচনের মনোনয়ন বাছাই বোর্ডের সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় প্রার্থী হিসেবে এ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজুকে চূড়ান্ত করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী সেদিন এও বলেছিলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দেশের বৃহৎ দল হিসেবে আওয়ামী লীগকে প্রার্থী দিতে হয়, তাই দিলাম। আবার যেহেতু জাতীয় পার্টি (জাপা) আমাদের মহাজোটের অংশ, তাই প্রয়োজেন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেওয়া হতে পারে। তখন আমরা জোটগত নির্বাচন করবো। এটা কোন অভিমান রাখা যাবে না।’ জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যানের প্রতি সম্মান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলে রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক তৌহিদুর রহমান টুটুল। এদিকে, নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা সাধারণ জনমনে এবং দলের মধ্যে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে না পারার আপেক্ষ প্রকাশ করতে গিয়ে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ২১ তারিখ ভোটকেন্দ্র বর্জনের ঘোষণা দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তবে দলের সচেতন নেতারা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনাতে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হয়েই মহাজোটের প্রার্থী রওশনপুত্র রাহগীর আল মাহি সাদের পক্ষে মাঠে থাকবে।
উল্লেখ্য, জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শুন্য ঘোষিত রংপুর-৩ আসনে উপ-নির্বাচনের জন্য গত ১ সেপ্টেম্বর তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, এই নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত, তা বাছাই হবে ১১ সেপ্টেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর। তার ১৮ দিন পর ৫ অক্টোবর হবে ভোটগ্রহণ।
রংপুর সদর উপজেলা ও সিটি করপোরেশন নিয়ে গঠিত এ আসনের মোট ভোটার রয়েছে ৪ লাখ ৪২ হাজার ৭২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ২১ হাজার ৩১০ জন এবং ২ লাখ ২০ হাজার ৭৬২ জন নারী ভোটার। ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনটিতে ইভিএমে ভোট অনুষ্ঠিত হয়।সেই ভোটে ১ লাখ ৪২ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান পেয়েছিলেন ৫৩ হাজার ৮৯ ভোট। এবারো ইভিএমে ভোট হবে। এবারো ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন রিটা রহমান।
Related Posts

leave a comment