Just IN :

রাজধানীসহ সারাদেশে ব্যানার, ফেস্টুনসহ বিভিন্নভাবে প্রচার করছেন .

রাজধানীসহ সারাদেশে ব্যানার, ফেস্টুনসহ বিভিন্নভাবে প্রচার করছেন .

রাজধানীসহ সারাদেশে ব্যানার, ফেস্টুনসহ বিভিন্নভাবে প্রচার করছেন .

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগের ‘ত্রিবার্ষিক জাতীয় কাউন্সিল ২০১৯’ আগামীকাল (বুধবার) রাজধানীর ঐতিহাসিক শহীদ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে। এদিন সকাল ১১টায় দলীয় কৃষক লীগ সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করবেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলনকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশমঞ্চ তৈরিসহ বিভিন্ন আয়োজনে ব্যস্ত সময় কাটছে কৃষক লীগের নেতাকর্মীদের। এরই মধ্যে সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে সাজসাজ রব পড়ে গেছে।

 

আজ (মঙ্গলবার) সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, উদ্যানের (ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট সংলগ্ন) গেটের অদূরে উত্তর-দক্ষিণমুখী করে বিশাল মঞ্চ তৈরি করা হচ্ছে। মঞ্চে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশাল আকারের ছবি শোভা পাচ্ছে।

উপস্থিত কৃষক লীগ নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, লম্বায় ৯০ ফুট আর প্রস্থে ৩০ ফুট মঞ্চ তৈরি করা হচ্ছে। মঞ্চে কৃষি ও কৃষকসংশ্লিষ্ট বিষয়কে প্রাধান্য দেয়া হবে। ‘আমার বাড়ি, আমার খামার’ স্লোগানকে সামনে রেখে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

মঞ্চ এমনভাবে সাজানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে, যেন দেখতে এমন মনে হয়, মূলমঞ্চ কোনো বনের মধ্যে রয়েছে। চারদিকে গাছ-গাছালির আধিক্য থাকবে। এছাড়া মূলমঞ্চের সামনে আরও দুটি ছোট মঞ্চ করা হয়েছে। এর একদিকে থাকবে কৃষকদের সবজির বাজার, অন্যদিকে থাকবে কৃষক নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সম্মেলনে সারাদেশের প্রায় ছয় হাজার কাউন্সিলর অংশগ্রহণ করবেন। এছাড়া অনেক ডেলিগেট আসবে বলে তারা জানান।

উল্লেখ্য, দেশে কৃষির উন্নয়ন এবং কৃষকের স্বার্থরক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ কৃষক লীগ প্রতিষ্ঠা করেন। সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সম্মেলন হয় সর্বশেষ ২০১২ সালের ১৯ জুলাই। তিন বছর কমিটির মেয়াদ থাকলেও চলেছে প্রায় আট বছর। শুধু কেন্দ্রীয় কমিটি নয়, জেলা পর্যায়ের কমিটিগুলোও বিভিন্ন কারণে ঝিমিয়ে পড়েছে।

জাতীয় সম্মেলন ঘিরে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে কৃষক লীগে। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে আজ সকাল ১০টা থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অবাধ প্রবেশ বন্ধ করে দেয়া হয়। এছাড়া উদ্যোনে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

Related Posts