বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:১৯ অপরাহ্ন

সবজিতেই ভরসা

এনপি নিউজ ৭১ ডেক্সঃ
গত এক মাসের বেশি সময় ধরে অস্থির থাকা ভোজ্য তেলের বাজারে স্বস্তি ফিরতে শুরু করলেও তা পুরোপুরি আশাব্যঞ্জক নয়। এ সপ্তাহে সয়াবিনের দাম কিছুটা কমলেও বেড়েছে সুপার সয়াবিন এবং পাম অয়েলের দাম।
এদিকে, সরবরাহে ঘাটতি না থাকলেও চিনির দাম এ সপ্তাহেও মণ প্রতি ১৫ টাকা বেড়েছে। মুরগির মাংসের দামও ১০ টাকা বেড়েছে। এখনও বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের মাছ। তবে মৌসুমি সবজির দাম কম হওয়ায় স্বস্তিতে ক্রেতারা। রাজধানীর কয়েকটি বাজারে এ চিত্র দেখা গেছে। তবে বাজারগুলোতে দাম কমেছে সব ধরনের চাল ও পেঁয়াজের।
শীতের সবজির পাশাপাশি আগাম পাওয়া যাচ্ছে গ্রীষ্মকালীন সবজি৷ আগাম সবজির দাম বেশি হলেও স্থিতিশীল রয়েছে অন্যান্য সবজির দাম। অপরিবর্তিত রয়েছে ডাল, ডিম, চিনি, আটা, গুঁড়া দুধসহ সব ধরনের মুদি পণ্যের দাম।
শুক্রবার  রাজধানীর শান্তিনগর, মালিবাগ, সেগুনবাগিচাসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের  এ তথ্য জানা গেছে।
রাজধানীর বাজারগুলোতে প্রতি কেজি খোলা সয়াবিন তেল ৮৮ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। যা গত সপ্তাহে ছিল ৮২ টাকা। আর ৫ লিটারের বোতল বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে ছিল ৪৫০ টাকা। ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ টাকা। যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ১৩৫ টাকায়। লেয়ার মুরগি (ছোট) বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা থেকে ২২০ টাকা পিস আর মাঝারি সাইজের পাকিস্তানি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকায়। বড় সাইজের মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ টাকায়।
নাজিরশাইল চাল গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল কেজি প্রতি ৬০ টাকায়, বর্তমানে ৫৮ টাকা। মিনিকেট চাল ৫৫ টাকায় বিক্রি হলেও বর্তমানে ৫২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। স্বর্ণা গত সপ্তাহে ছিল ৪২ টাকা বর্তমানে ৪০ টাকা, বিআর ২৮ প্রতি কেজি ৪০ টাকায় বিক্রি হলেও বর্তমানে ৩৮ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।
মুরগি ব্যবসায়ীরা জানান, বেশ কিছুদিন মুরগির দাম স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু বিয়ে ও পিকনিককে কেন্দ্র করে হঠাৎ মুরগির চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দাম বেড়েছে। চলতি মাসের শুরু থেকেই মুরগির দাম বাড়তি। সবচেয়ে বেশি বেড়েছে পাকিস্তানি মুরগির দাম।
মুরগির দাম বাড়লেও বাজারে ডিম, গরু ও খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। গরুর মাংস আগের মতোই ৪৮০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা কেজি এবং খাসির মাংস ৭০০ টাকা থেকে ৮০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। মুরগির ডিম প্রতি ডজন ৯৫ টাকা, হাঁসের ডিম ১৫৫ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ১৭০ টাকা ডজন বিক্রি হতে দেখা গেছে।
গত সপ্তাহের তুলনায় খোলা ও প্যাকেটজাত তেলের দাম কেজিতে ৫ টাকা বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে এলাচ ও দারুচিনির দাম। এলাচের দাম কেজিতে বেড়েছে ৪০০ টাকা। দারুচিনি কেজিতে ৫০ টাকা বেড়েছে।  তবে চালের দাম কেজিতে ১ থেকে ২ টাকা কমেছে। আগের সপ্তাহ থেকে ২ টাকা কমে নতুন দেশি পেঁয়াজ ১৮ থেকে ২২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজের কেজি ১৫ থেকে ২০ টাকা।
রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলো ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে সবজির সরবরাহ ভালো থাকায় বেশিরভাগ সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।  আগাম সবজির মধ্যে প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা, ঝিঙ্গা ৮০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ টাকা। এছাড়া শীতের সবজি লাউ মানভেদে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, শিম ১৫ থেকে ২০ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা, ফুলকপি ১০ থেকে ১৫ টাকা পিস, বাঁধাকপি ১৫ থেকে ২৫ টাকা পিস, শালগম ১০ থেকে ২০ টাকা কেজি এবং মূলা ১০ থেকে ২০ টাকা, পাকা টমেটোর কেজি ১৫ থেকে ৩০ টাকা, নতুন আলুর ১৫ টাকা ও কাঁচা মরিচ ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া পালং শাক বিক্রি হচ্ছে ৫ থেকে ১৫ টাকা আঁটি, লাল ও সবুজ শাক বিক্রি হচ্ছে ৫ থেকে ১০ টাকা আঁটি, লাউ শাক পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায় ও সরিষা শাক ৫ থেকে ৫ থেকে ১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
ক্রেতারা বলছেন, বাজারে এখন সব ধরনের শীতের সবজি ভরপুর। যে কারণে সবজির দাম তুলনামূলক কম। ব্যাগ ভর্তি শাক-সবজি নিয়ে ঘরে ফেরা যাচ্ছে কম টাকাতেই। শীতের সবজি শেষ হয়ে এলেই সবজির দাম বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা ক্রেতাদের। বর্তমানে আগাম গ্রীষ্মকালীন সবজি পাওয়া গেলেও দাম অনেক বেশি বলে জানান তারা।
এদিকে গত সপ্তাহের চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে মাছ। রুই মাছ বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা কেজি। পাবদা মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি। টেংরা মাছের কেজি ৫০০ থেকে ৬৫০ টাকা। তেলাপিয়া মাছ বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৮০ টাকায়, শিং মাছ ৪০০ থেকে ৬০০ টাকায়, বোয়াল মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায়, চিতল মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায়, আইড় মাছ ৭০০ থেকে ৮০০ টাকায়, বাইলা মাছ ৭০০ টাকায়, বাইম ৬০০ টাকায়, পোয়া ৫০০ টাকায় ও মলা ৪০০ টাকায়। তবে ইলিশের দাম বেড়েছে হালিতে ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা।
অপরিবর্তিত রয়েছে মুদি পণ্যের দাম। বাজারে প্রতি  কেজি খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ২৬ টাকা, প্যাকেট ৩২ টাকা, চিনি আমদানিকৃত ৫০, দেশি লাল চিনি ৫৬ টাকা, ডাল ৪০ থেকে ৯০ টাকা, মানভেদে গুঁড়া দুধের প্যাকেট ২৭০ থেকে ৫৫০ টাকা, সরিষার তেলের কেজি ১২০ টাকা, লবণ ৩০ থেকে ৩৫ ও পোলাও-এর চাল ৯০ থেকে ৯৫ টাকা কেজি।

Please Share This Post in Your Social Media

7 responses to “সবজিতেই ভরসা”

  1. revolution cialis online pharmacy rating
    pair [url=https://getcialistabsfasty.com/]cialis online pharmacy[/url] slip https://getcialistabsfasty.com/

  2. compare tadalafil sildenafil [url=http://buyscialisrx.com]cialis coupon[/url] tadalafil tablets 5mg cialis online tadalafil not for consumption in the united states tadalafil jelly uk http://buyscialisrx.com tadalafil physicochemical properties

  3. kratom cheap says:

    kratom seed kratom tea for sale rit powdered dye [url=http://kratomsaleusa.com/#]maeng da kratom[/url] kratom
    leaves buy kratom legal in us http://kratomsaleusa.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah