শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১২:২০ অপরাহ্ন

সৈয়দপুরে সরকারী জমি দখল নেওয়ার জেরে বিয়ে বাড়িতে হামলা: আহত ৮: আটক ৪

সৈয়দপুরে সরকারী জমি দখল নেওয়ার জেরে বিয়ে বাড়িতে হামলা: আহত ৮: আটক ৪

এনপিনিউজ৭১/শাহজাহান আলী মনন/১৯ মার্চ রংপুর

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের গোলাহাটে সরকারী খাস খতিয়ানে ৪২ শতক জমি দখলে নেওয়ার জের ধরে বিয়ে বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। দখলে নিতে মরিয়া একটি পক্ষ দীর্ঘ দিন থেকে দখলে রাখা অপর পক্ষের উপর এ হামলা চালায় ১৮ মার্চ বুধবার রাত ৯ টায়। এতে উভয় পক্ষের ৮ জন আহত হয়েছে এবং গুরুত্বর একজনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পরে এ ঘটনায় মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে।

ঘটনার রাতে প্রায় দুই কোটি টাকা মূল্যের এ জমি কয়েকদিন পূর্বে নিজেদের দখলে নেওয়ার চেষ্টা করে শওকত গং। এসময় আগে থেকে দখলে থাকা আনোয়ার গং রা এতে বাধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে চরম বিরোধের সৃষ্টি হয়। এরই সুত্র ধরে ঘটনার রাতে শওকত এর নেতৃত্বে আন্নু, দানিস, আশরাফ, ওয়াসিম, হৃদয়, সাঈদ হাসান সহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন লাঠি সোটা ও ধারালো দেশীয় অস্ত্রসহ আনোয়ারের বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় আনোয়ারের বাড়িতে তার বোন ইসরাত জাহান লাডলির বিয়ে উপলক্ষ্যে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান চলছিল। হঠাৎ করে প্রতিপক্ষের হামলায় হতচকিত হয়ে পড়ে বিয়ে বাড়ির লোকজন। এতে উভয় পক্ষের ৮ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ৪ জনকে আটক করে।


স্থানীয়রা আহতদের সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করায়। এরা হলো- আনোয়ার, মাহমুদ, খুরশিদ, শওকত, আন্নু, দানিস, আশরাফ, ওয়াসিম। এদের মধ্যে গুরুতর আহত আনোয়ার হোসেনকে (৩৮) উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে কর্তব্যরত চিকিৎসক।
আটক ৪ জন হলো আনোয়ার হোসেন’র ছেলে হৃদয় (২০) ও সাঈদ হাসান (১৮) এবং ইয়াছিনের ছেলে ইরফান (২৬) ও শফি আলমের ছেলে মাহবুব আলম (৪০)। রাতে মাহবুব আলমের ভাই মাহমুদ আলম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আটক হৃদয় ও সাঈদ হাসানকে আসামী করায় ১৯ মার্চ বৃহস্পতিবার তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ। আটক ইরফান ও মাহবুবের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না থাকায় ১৫১ ধারায় আদালতে প্রেরণ করে।
এ নিয়ে স্থানীয়রা জানান, বেওয়ারিশ খাস জমি দখলে নেয়ার প্রতিযোগিতায় উভয় পক্ষের মধ্যে তিন দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে আমরা মহল্লাবাসী আতঙ্কিত। যে কোন সময় বড় ধরনের অঘটন ঘটার আশংকা করছেন তারা। এজন্য প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসী।


মামলার বাদী মাহমুদ আলম জানান, স্থানীয় প্রভাবশালী নুরী সেন্ট হাউজের রিয়াজ উদ্দিনের সহযোগিতায় তার ভাতিজা আশরাফের নেতৃত্বে শওকত গংরা এ হামলা চালিয়েছে। তারা দীর্ঘদিন থেকেই জমিটি দখলে নেওয়ার জন্য নানা পায়তারা করে আসছে। সম্প্রতি গায়ের জোড়েই তারা জায়গাটি টিন দিয়ে ঘিরে নিজেদের দখলে নেওয়ার অপচেষ্টা চালিয়েছে। এ অপকর্মে বাধা দেওয়ায় তারা বার বার হামলার ঘটনা ঘটাচ্ছে। সন্ত্রাসী কায়দায় ধারালো অস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমার চাচাতো ভাই আনোয়ার সহ ৪ জনকে জখম করেছে।
নুরী সেন্ট হাউজের রিয়াজ উদ্দিনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, মাহমুদের অভিযোগ সত্য নয়। ওই জমি নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই। আমার ভাতিজারা শওকতদের ওয়ারিশ হওয়ায় তাদের পক্ষে অবস্থান নিতেই পারে। এতে আমার সংশ্লিষ্টতা নেই।
সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসনাত খান জানান, রাতে একটি পক্ষ মামলা করেছে। তবে অপর পক্ষটি অভিযোগ দিলে তা অবশ্যই গ্রহণ করা হবে। তিনি জানান, কোন অবস্থাতে সেখানে অনাকাঙ্খিত কোন ঘটনা ঘটানোর কেউ চেষ্টা করলে তাকে আইনের আওতায় নেয়া হবে।
এদিকে সৈয়দপুর পৌর ভূমি অফিস মতে, পৌর এলাকার গোলাহাট পুলিশ ফাঁড়ির ১০০ গজ দূরে কয়া মৌজার ৪৯৪৭ দাগের ৪২ শতক জমি লা-ওয়ারিশ খাস জমি হিসেবে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। ইতিপূর্বে দুই দফায় স্থানীয় দুটি পক্ষ গাছসহ উক্ত সম্পত্তি নিজেদের দখলে নেয়ার চেষ্টা চালায়। বুধবার রাতে একটি পক্ষ দখলে নিতে গেলে অপর পক্ষ (যারা দীর্ঘ দিন থেকে দখল করে আছে) বাঁধা প্রদান করায় সংঘর্ষ বাঁধে। এতে উভয় পক্ষের ১১জন আহত হয়।
এ ব্যাপারে সৈয়দপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার জানান, ৪২ শতক জমিই সরকারী সম্পদ। প্রতিপক্ষ দুটি পক্ষই তাদের সম্পদ বলে দাবি করছে। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, চাইলেই তো আর জমির মালিক হওয়া যায় না, মালিকানার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি থাকতে হবে।

এনপি৭১/মেহি

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah