বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন

সৈয়দপুরে সিঙ্গার শো-রুম ম্যানেজার কোম্পানির ৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ মামলায় আটক   

সৈয়দপুরে সিঙ্গার শো-রুম ম্যানেজার কোম্পানির ৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ মামলায় আটক   

শাহজাহান আলী মনন/নীলফামারী রংপুর ২ জুলাই

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের সিঙ্গার শো-রুমের ম্যানেজার মোঃ নুরুল আমিন প্রামাণিক কে আটক করেছে পুলিশ।  ১ জুলাই বুধবার রাত ১০ টায় শহরের শহীদ তুলশী রাম সড়কের সিঙ্গার শো-রুমের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। কোম্পানির ৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে মামলার প্রেক্ষিতে তাকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
থানা সূত্রে আরও জানা যায়, আটক নুরুল আমিন প্রামাণিক দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছর যাবত সিঙ্গার শো-রুমে কর্মরত। এর মধ্যে তিনি কোম্পানির অনেক টার্গেট অফার পূরণ করে বেশ কিছু এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। এমন কি পর পর কয়েকবার দেশ সেরা ম্যানেজারও হন তিনি। একারনে তার প্রতি কোম্পানী খুবই সন্তুষ্ট। আর এ সুযোগে তিনি কোম্পানির নিয়ম ভঙ্গ করে ব্যাপকহারে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক পন্য কিস্তিতে বিক্রয় করেন। বিগত প্রায় ৫ বছর যাবত তার বিক্রিত পন্য সামগ্রীর কিস্তি আদায়ে চরম অব্যবস্থাপনা পরিলক্ষিত হয়। এতে তাকে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। কিন্তু তিনি সন্তোষজনক কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। এতে কোম্পানি তদন্ত শুরু করলে অনেক অনিয়ম ও দূর্নীতি বেরিয়ে আসে। প্রায় ৬৮ লাখ টাকার ঘাপলা প্রকাশ পায়। এর মধ্যে ৩৬ লাখ টাকা বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে পাওনার হিসাব পাওয়া গেলেও বাকী ৩২ লাখ টাকার কোন হিসাবই দিতে ব্যর্থ হয় নুরুল ইসলাম প্রামাণিক।
এমতাবস্থায় সময় চান তিনি। কিন্তু একবছর পেরিয়েও হিসাব দিতে না পারায় তাকে বরখাস্ত করে আত্মসাৎকৃত অর্থ ফেরত প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়। এসময় সৈয়দপুর শো-রুম কোম্পানির তত্বাবধানে নিয়ে সার্বিক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কিস্তিতে পন্য বিক্রি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
এদিকে সৈয়দপুর পৌরসভার কাছে ৩৬ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে বলে কোম্পানিকে দেয়া তথ্যানুযায়ী তদন্ত করে সত্যতা না পাওয়ায় কোম্পানি পৌর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়ায় বাধ্য হয়ে নিজের দাবীকে সত্য প্রমান করতে নানা কান্ড ঘটায় নুরুল আমিন প্রামাণিক। এক পর্যায়ে পৌর মেয়র টাকা না দিয়ে আত্মসাৎ করে তাকে চাকুরীচ্যুত করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। এতে নিজেকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও বর্তমানে আওয়ামীলীগের সাথে সম্পৃক্ত থাকায় রাজনৈতিক প্রতিহিংসাবশত বিএনপির সাবেক এমপি ও বর্তমান পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার তাঁকে ফাঁসাতে তার সরলতার সুযোগ নিয়েছেন। মেয়রসহ তার পরিষদের কাউন্সিলর ও দলীয় নেতাকর্মীদের স্লিপ দিয়ে পাঠিয়ে পন্য সামগ্রি নিয়েছেন। কিন্তু এখন অস্বীকার করে বেকায়দায় ফেলে চাকরি ও জীবনকেই ঝুঁকিতে ফেলেছেন।
এ পরিস্থিতিতে নুরুল আমিন  প্রামাণিক পৌরসভা চত্বরে  আমরণ অনশন করার  হুমকি দেয় এবং সংবাদ সম্মেলন করে তার অভিযোগ তুলে ধরেন। এতে পুরো শহরজুড়ে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয় এবং বিষয়টি নিয়ে তাত্ক্ষণিকভাবে পৌর মেয়রের প্রতি একটা নেতিবাচক ধারনা তৈরী করতে সক্ষম হয়। কিন্তু অবশেষে কোম্পানিই তার বিরুদ্ধে ৩২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে মামলা করেছে। ১ জুলাই সৈয়দপুর থানায় এ মামলা করেছে সিঙ্গারের রংপুর অঞ্চলের এরিয়া ম্যানেজার সামস্ আল আরেফিন।
সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল হাসনাত খান জানান, কোম্পানি কর্তৃক মামলার প্রেক্ষিতে তাকে রাতে আটক করা হয়েছে এবং পরদিন সকালে নীলফামারী জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।
এঘটনায় শহরজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
উল্লেখ্য, নুরুল আমিন প্রামাণিক এর বিরুদ্ধে ন্যাশনাল ব্যাংক সৈয়দপুর শাখারও ১৫ লাখ টাকার ঋণ খেলাপীর মামলা চলমান রয়েছে। এছাড়া স্থানীয় সমবায়ী ঋণদান সংস্থা সেবক এর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা তার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা স্ত্রীর নামে ঋন নিয়ে পরিশোধ না করে উল্টো স্থানীয় ও রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয় অনিয়মতান্ত্রিকভাবে আরও ১২ লাখ টাকা ঋন দাবী করে। সংস্থাটি তা না দেয়ায় হুমকি প্রদর্শন পূর্বক সংবাদ সম্মেলন করে পরিচালনা পরিষদের সদস্যদের বিরুদ্ধে নানা মিথ্যা অভিযোগ তুলে ধরে মানহানি ঘটায়। এ ব্যাপারেও ওই সংস্থার পক্ষ থেকেও একটি মামলা চলমান রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah