শুক্রবার, ২৫ Jun ২০২১, ০৭:১৮ অপরাহ্ন

হারাগাছ হবিন বিড়ির বেতন বকেয়া রাখায় শতাধিক শ্রমিকের মানবেতর জীবন 

হারাগাছ হবিন বিড়ির বেতন বকেয়া রাখায় শতাধিক শ্রমিকের মানবেতর জীবন 

এনপিনিউজ৭১/নিজেস্ব প্রতিবেদক১৫ এপ্রিল রংপুর   

রংপুরে হারাগাছ এলাকায় হবিন বিড়ি শ্রমিকের ৭ মাসের বেতন বকেয়া রাখায় শ্রমিকরা না খেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এই ঘটনায় শ্রমিক সর্দার মাহাবুলব সুনিয়া হারাগাছ মেট্রেপলিটন থানায় বকেয়া বেতন আদায় চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
অভিযোগে জানা যায়, রংপুরের হারাগাছ এলাকার তৈয়ব উদ্দিনের পুত্র হবিণ বিড়ি মালিক হুমায়ন কবির কাউনিয়া থানার বকুল তলা নগর বান্দ এলাকায় মাহাবুল বসুনিয়াকে দিয়ে ১’শ শ্রমিক দিয়ে ৪ বছর ধরে বিড়ি তৈরী করে আসছিল। বিড়ি তৈরী কালে শ্রমিকের ৭ মাসের বেতন বাবদ এক লক্ষ পঁয় ষট্টি হাজার টাকা বকেয়া রাখে। শ্রমিকের বকেয়া বেতনের টাকা না দিয়ে অন্য এলাকায় বিড়ি তৈরী শুরু করে দেয়। এদিকে বিশ্বেও মহামারি করোনায় বিড়ি শ্রমিকের কাজ না থাকায় তারা না খেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। শ্রমিকরা তাদের পাওনা বকেয়া টাকা হবিন বিড়ির মালিক হুমায়ন কবিরের কাছে চাইতে গেলে তিনি বেতন না দিয়ে শ্রমিকদের উল্টো হুমকি দেয়। এই ঘটনায় বিড়ি শ্রমিক সর্দার মাহাবুল মঙ্গলবার হারাগাছ মেট্রেপলিটন থানায় বকেয়া বেতন আদায় লক্ষ্যে হবিণ বিড়ি মালিক হুমায়ন কবিরের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করে।


ষাট উর্দ্ধে বিড়ি শ্রমিক আনোয়রা বেগম বলেন, বাবা আমার স্বামী মারা যাওয়ায় আমার আয় রোজ গার করবার কেউ নাই। মোর ৩ হাজার ট্যাকা বাকি থুইছে। মুই দিনরাত পরিশ্রম করে বিড়ি কাজ করছো। বিড়ি মালিক এলা অভাবের সময় ট্যাকা গুলা দিলে হ্যামরা গুলা খায়া বাঁচনো হয়। ১০/১২ দিন ধরি এক বেলা খায়া জীবনটা বাচে থুচ্ছি। তোমরা গুলা হ্যামার ট্যাকা গুলা আদায় করি দেও বাবা, তোমার ভালো হইবে তোমার জন্য ম্যালা দোয়া করিম।
শ্রমিক সর্দারের মেয়ে মাহমুদা বলেন, আমার বাবাসহ আমি অভিযোগ দিতে গেলে হবিণ বিড়ি মালিক হুমায়ন কবির থানার ভীতওে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ কওে হুমকি দিতে থাকে। এ বিষয়ে হবিণ বিড়ি মালিক হুমায়ন কবিরের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমার কাছে শ্রমিকরা পঁয়ষট্টি হাজার টাকা পাবে। তবে শ্রমিক সর্দার মাহাবুল বসুনিয়া আমার চার লক্ষ বিড়ি আটকে রেখেছে সেগুলো দিলে আমি তাদের পাওনা টাকা পরিশোধ করে দেব।
অভিযোগের বিষয়ে নিশ্চিত কওে হারাগাছ মেট্রেপলিটন থানার অফিসার ইনর্চাজ রেজাউল করিম বলেন, অভিযোগ পেয়ে আমরা তদন্ত করছি। শ্রমিকদের বকেয়া টাকা আদায়ে আইন সব রকম সহযোগিতা করবে। এলাকা বাসী শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য উদ্ধর্তন কর্তৃ পক্ষের হস্তক্ষেপ কামনাকরছে।

এনপি৭১/মেহি


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah