November 30, 2020, 2:20 am

Just In : আমাদের দেশের আইনের শাসনের ডেলিভারীকারীরা আপোষকামিতা করে : সুলতানা কামাল
আমাদের দেশের আইনের শাসনের ডেলিভারীকারীরা আপোষকামিতা করে : সুলতানা কামাল করোনা সন্দেহ: রংপুর থেকে একজনকে ঢাকায় স্থানান্তর   
আমাদের দেশের আইনের শাসনের ডেলিভারীকারীরা আপোষকামিতা করে : সুলতানা কামাল
সাংবাদিকের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদে টিসিএর অবস্থান ধর্মঘট “নো মাস্ক – নো সার্ভিস”- স্লোগানে রংপুরে করোনার দ্বিতীয় ডেউ সামলাতে মাঠে থাকবে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ- সাইফুল ইসলাম সুইট। রংপুরের শ্যামপুর চিনিকলের কর্মচারী ও চাষীদের মানববন্ধন রংপুর মহানগর ব্যাটরী চালিত চার্জার রিষ্কা -ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন পার্টির নবগটিত কমিটির পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত গৃহবধূর সাথে অপকর্মের সময় জনতার হাতে পুলিশ সদস্য আটক সিলেট সিটি মেয়রের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলেন বাংলার চোখ‘র চেয়ারম্যান তানবীর চলে গেলেন সর্বকালের অন্যতম সেরা ম্যারাডোনা সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরে যেতে পারবেন না তরুণ-তরুণীরা রংপুরে চাচার বিচারের দাবিতে ভাতিজার মানববন্ধন‌ রংপুরে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ পুলিশের এএসআই আটক
১০ মে থেকে সীমিত পরিসরে খুলছে দোকানপাট-শপিংমল

১০ মে থেকে সীমিত পরিসরে খুলছে দোকানপাট-শপিংমল

এনপিনিউজ৭১/ডেস্ক রিপোর্ট/ ৪ মে

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে বিস্তার ঠেকাতে সরকারি-বেসরকারি অফিসে ছুটির মেয়াদ ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হলেও সীমিত পরিসরে খুলছে হাটবাজার, ব্যবসাকেন্দ্র, দোকানপাট শপিং মলগুলো। ঈদকে সামনে রেখে শর্তসাপেক্ষে আগামী ১০ মে থেকে এগুলোসহ অন্যান্য কার্যাবলি সীমিত আকারে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে এগুলো সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

আর আসন্ন ঈদের সময় জনগণকে নিজ নিজ স্থানে থাকতে হবে এবং আন্তজেলা, উপজেলা বা বাড়িতে যাওয়ার ভ্রমণ থেকে বিরত থাকতে হবে।
এর আগে গত ২৬ এপ্রিল থেকে তৈরি পোশাক কারখানা সীমিত পরিসরে খুলে দেওয়া হয়েছে। এখন হাটবাজার, দোকানপাট খোলার সুযোগ দেওয়ার মধ্যে দিয়ে লকডাউন (অবরুদ্ধ) পরিস্থিতি শিথিল হয়ে গেল।

আজ সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশে দোকানপাট খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়, হাটবাজার, ব্যবসা কেন্দ্র, দোকানপাট ও শপিংমলগুলো ১০ মে থেকে সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটার মধ্যে সীমিত রাখতে হবে। প্রতিটি শপিংমলের প্রবেশের ক্ষেত্রে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঘোষিত সতর্কতা গ্রহণ করতে হবে।
এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকাল আনোয়ারুল ইসলাম আজ প্রথম আলোকে বলেন, এই সময় বলা হলেও নিজ নিজ এলাকার পরিস্থিতি বিবেচনা করে স্থানীয় প্রশাসন তাঁদের সুবিধামতো নির্দেশনা দিতে পারবে। অর্থাৎ প্রয়োজন হলে তার আগেও বন্ধ রাখার কথা বলতে পারে।
গত ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশে ছুটি ও লকডাউন পরিস্থিতি চলছে। এই সময়ে ছয় দফায় ছুটি বাড়ানো হলো। করোনাভাইরাসের কারণে প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি দেওয়া হয়েছিল। এরপর ছুটি বাড়িয়ে তা ১১ এপ্রিল করা হয়। ছুটি তৃতীয় দফা বাড়িয়ে করা হয় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এরপর চতুর্থ দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। আর পঞ্চম দফায় ছুটি ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। এখন আবার বাড়ল।

এনপি৭১/সূত্র: প্রথম আলো

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah