মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানকেমিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ

সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানকেমিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরে এক শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য দিনমজুর কামরুজ্জামান কামুকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’র সদস্য হিসেবে আটক দেখিয়ে অপপ্রচার করার প্রতিবাদ ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন তার পরিবার। মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সদর উপজেলার উত্তর মমিনপুর ইউনিয়নের ছোট মকুটপুর গ্রামের বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান কামরুজ্জামানের বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা শামসুল আলম শাহ।
তিনি অভিযোগ করেন, গত ১৩ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কামরুজ্জামান কামুকে বাড়ি থেকে আটক করে। পরে তারাগঞ্জ থানার একটি মামলায় (মামলা নং-০২, ০৮/০১/২০১৯) তাকে জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’র সন্ধিগ্ধ আসামী হিসেবে দিখিয়ে উগ্রবাদি বই, লিফলেট, মোবাইল ফোন ও সিমকার্ড উদ্ধার হয়েছে বলে অপপ্রচার চালানো হয়। মূলত জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্থানীয় আনিছুল ইসলাম আমাদের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে কলংকিত করতে এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে এই ঘটনাটি ঘটিয়েছেন।
মুক্তিযোদ্ধা শামসুল আলম শাহ আরো বলেন, আমরা শহীদ পরিবারের সন্তান। আমি ও আমার আরেক ভাই মুক্তিযোদ্ধা। আমাদের পরিবারের সবাই মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগের সমর্থক ও সদস্য। আমার ছোট ভাই কামরুজ্জামান কামু ১৯৯৯ সাল থেকে উত্তর মমিনপুর আওয়ামী লীগের ৯৯০৬৫৮নং এবং বর্তমান ৪১২১৯১৮নং সদস্য। এছাড়াও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে সদস্য হিসেবে আছেন। তারপরও আমাদের পরিবারকে হেয় করতে এবং আনিছুল ইসলাম নিজের স্বার্থ উদ্ধারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমার ছোট ভাইকে গ্রেফতার করিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে কামরুজ্জামান কামুর আরেক ভাই মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম বলেন, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দলের সৈনিক কোন দিনও নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনের সদস্য হতে পারে না। আনিছুলের সাথে আমাদের দীর্ঘদিনের জমি জমার বিরোধের কারণেই আমার ছোট ভাই কামরুজ্জামান কামুকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। এসময় ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন এবং কামুর নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান তারা। সংবাদ সম্মেলনে কামরুজ্জামান কামুর স্ত্রী, দুই শিশু সন্তানসহ স্থানীয় এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থাকা উত্তর মমিনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৫নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক শ্রী অশ্বীনী মোহন্ত কুমার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা তো কখনো কামুর জঙ্গিদের জড়িত থাকার কথা শুনিনি। কামু তো একজন দিনমজুর। রাজমিস্ত্রির কাজের পাশাপাশি চাষাবাদ করে। আওয়ামী লীগের মিটিং মিছিলে সব সময় ওকে কাছ থেকে দেখেছি। এখন যদি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের এই সদস্যকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মামলা মিথ্যায় আটক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অপপ্রচার চালায়, সেটি খুবই দুঃখজনক।
মমিনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওবায়দুল ইসলাম মিন্টু জানান, মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সামছুল আলম শাহ্, মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ নজরুল ইসলাম ও রাজমিন্ত্রি কামরুজ্জামান কামুদের পরিবার মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোকজন। তারা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য। আমি যতদূর জানি, কামুদের পরিবারের সাথে আনিছুল ইসলামের দীর্ঘদিন ধরে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। তবে কামু কি কারণে গ্রেফতার হয়েছেন, তা জানা নেই বলে দাবি করেন এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা।
এই অভিযোগের ব্যাপারে তারাগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জিন্নাত আলী বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি টিম কামরুজ্জামানকে গ্রেফতার করেছে। আমরা মামলাটি তদন্ত করছি। বর্তমানে কামরুজ্জামান জেলহাজতে আছেন বলে জানান তিনি।


© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah