শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৩১ অপরাহ্ন

রংপুরে ১১ দফা দাবি নিয়ে মানববন্ধন

এনপিনিউজ৭১/নিজেস্ব প্রতিবেদক/ ৭ মে

সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমুজুর ও কৃষক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রংপুর জেলার উদ্যোগে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে বৃহস্পতিবার দুপুরে সংগঠনের ব্যানার প্লাকার্ডে লেখা বিভিন্ন দাবি নিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে।
নেতৃবৃন্দ কৃষক, ক্ষেতমজুর, কৃষি, অর্থনীতি ও দেশ বাঁচাতে নিন্মোক্ত ১১ দফা দাবিসমূহ বাস্তবায়নে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবি জানান।
১১ দফা দাবিসমূহ হলো, প্রতি ইউনিয়নে ক্রয় কেন্দ্র খুলে সরকার নির্ধারিত দামে উৎপাদক কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতে হবে। ময়শ্চার বা ভেজা অজুহাতে কৃষকের ধান কেনা বন্ধ করা যাবে না; প্রয়োজনে খাদ্য গুদাম বা ক্রয়কেন্দ্রে ড্রায়ার মেশিনে ধান শুকিয়ে উৎপাদক কৃষকের কাছ থেকে ধান কিনতে হবে।
মোট উৎপাদিত বোরো ধানের কমপক্ষে ২০% অর্থাৎ ৪০/ ৪২ লাখ টন ধান সরকারি উদ্যোগে কিনতে হবে।
খাদ্য গুদামে ধারন ক্ষমতা নাই এ অজুহাতে ধান কম কেনা যাবে না, পর্যাপ্ত খাদ্য গুদাম/ সাইলো নির্মাণ করতে হবে; আপদকালীন সময়ে বেসরকারি রাইস মিল বা চাতালের গুদাম ভাড়া নিতে হবে; এমনকি ধান কিনে কৃষকের বাড়িতেও রাখা যেতে পারে।

প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন। ছবি: এনপি৭১

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ঋণ নয়, নগদ অর্থ সহায়তা দিতে হবে।
কৃষি ঋণ প্রণোদনা প্যাকেজ সুদ মুক্ত করতে হবে; বর্গাচাষী, ভূমিহীন ও ক্ষুদ্র চাষীদের ঋণ প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে নীতিমালা পরিবর্তন করতে হবে।
ভূমিহীন, ক্ষেতমজুর ও ক্ষুদ্র চাষীদের জন্য নগদ অর্থ সহায়তা ও আর্মি রেটে গ্রামীণ রেশনিং ব্যবস্থা চালু করতে হবে। ভিজিএফ, ভিজিডিসহ সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির বরাদ্দের পরিমাণ ও সংখ্যা বাড়াতে হবে।
দশ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ সুদসহ মাফ করতে হবে। কৃষকের নামে দায়েরকৃত সার্টিফিকেট মামলা ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা প্রত্যাহার করতে হবে। এনজিও ঋণের কিস্তি আদায় ছয় মাস বন্ধ রাখতে হবে।
করোনা বিধ্বস্ত অর্থনীতি পুনর্গঠনে আগামী বাজেটে কৃষি খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে উন্নয়ন বাজেটের ৪০% বরাদ্দ করতে হবে।
সার, বীজ, সেচ, ডিজেল, বিদ্যুৎ, কীটনাশকসহ কৃষি উপকরণে সরকারি সহায়তা আরও বাড়াতে হবে।

জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করে।ছবি: এনপি৭১

ত্রাণের চাল-ডাল-তেল চুরি, দুর্নীতি, দলীয়করণ বন্ধ করতে হবে; চোরদের শুধু বরখাস্ত নয় গ্রেপ্তার, বিচার ও তাদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করতে হবে।
মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করে। স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সদস্য ও বাসদ রংপুর জেলা আহবায়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুস, কৃষক ফ্রন্টের জেলা সভাপতি ও বাসদ নেতা মমিনুল ইসলাম, জেলা বাসদ সদস্য সাদেক হোসেন প্রমূখ।

এনপি৭১/

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020-21 npnews71.com
Developed BY Akm Sumon Miah